আজ ১৯শে অক্টোবর ২০১৭, ৪ঠা কার্তিক ১৪২৪, ৩০শে মুহাররম ১৪৩৯

তাহসান-মিথিলার বিচ্ছেদে ফেসবুকে মাতম

জুলাই ২১, ২০১৭

মিডিয়ার জনপ্রিয় তারকা দম্পতি তাহসান-মিথিলাকে আদর্শ মেনে গড়ে উঠেছে অনেক প্রেমিক জুটি। তাদের চাওয়া-পাওয়া এবং স্বপ্নের মাঝে নিত্যই খেলা করতেন তাহসান-মিথিলা। কিন্তু সেই স্বপ্নে ছেদ পড়েছে। শোবিজ জগতের এই আলোচিত ও রোমান্টিক জুটির পতন ঘটেছে। বেশ কিছুদিন ধরে গুঞ্জন থাকলেও ভক্তরা সেটি বিশ্বাস করেনি। অনেকে এখনো বিশ্বাস করতে পারছেন না। কেউ কেউ কায়মনোবাক্যে প্রার্থনা করেছেন যেন সবকিছু ঠিক হয়ে যায়। ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের এমন আবেগ, অবিশ্বাস ও ফিরে আসার আকুতি নিয়ে দেয়া ফেসবুকের স্ট্যাটাসগুলো কম্পিউটার/মোবাইলের স্ক্রিনে ঘুরপাক খাচ্ছে গত দুইদিন ধরে। যেন মাতম চলছে। এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজের ফেসবুক ভ্যারিফাইড পেইজে স্ট্যাটাস দিয়ে তাহসান ডিভোর্সের আনুষ্ঠানিক খবর প্রকাশ করেন। স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, আমরা বেশ কয়েক মাস থেকেই আলাদা থাকছি। গত কয়েক মাস ধরেই বিষয়টি নিয়ে আমরা ভাবছিলাম। অবশেষে সিদ্ধান্ত নিলাম কোনো চাপে না থেকে আলাদা থাকার। আমরা জানি আমাদের এই সিদ্ধান্তে অনেকে ব্যথিত হবেন। সে জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। তিনি আরো লিখেন, আমরা সব সময়ই আমাদের সম্পর্কটা ভালোবাসা ও নীতিবোধের মধ্যে রেখেছিলাম। আশা করবো এই সিদ্ধান্তের পরও সেটা অব্যাহত থাকবে। আমাদের এই কঠিন সময়ে আমাদের ভক্তরা আমাদের সঙ্গে থাকবেন বলেই বিশ্বাস করি আমরা। তাহসানের স্ট্যাটাসের পরপরই নূর আলম মাহি নামে একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী তার নিজের ওয়ালে লিখেছেন, ‘তাহসান-মিথিলার জুটি ভেঙে গেল। ডিভোর্স হয়ে গেল। এর চেয়ে খারাপ সংবাদ আর কি হতে পারে?’ সাদিয়া চৌধুরী লিখেছেন, ‘তাহসান-মিথিলার ডিভোর্স ইজ ইট ট্রু নিউজ?? ও মাই গড কান্ট বিলিভ। এদের মতো কাপলের ডিভোর্স হলে আর কিসের কি ডেম ইট…।’ ক্ষোভ প্রকাশ করে তাইফ রহমান ধ্রুব লিখেছেন, ‘তাহসান মিথিলার ডিভোর্স হয়েছে। তাদের চেয়ে বেশি কষ্ট পাচ্ছে বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। তাদের মন চাইছে আলাদা হয়েছে।’ ইশিকা আলবিনা বৃষ্টি নামে আরেকজন লিখেছেন, ‘আমি মানতে পারছি না…তাহসান মিথিলার ডিভোর্স, সত্যি কি ওদের বিচ্ছেদ ঘটলো।’ প্রিয়া লিখেছেন, ‘আমার আইকন কাপল ছিলেন আপনারা…তাহসান মিথিলার ডিভোর্স এটা মাথায় আনতেই আমার খারাপ লাগছে…সত্যি আমি আপনাদের কাউকেই অন্য কারো সঙ্গে ভাবতেই পারি না। আমি সত্যিই ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। আমি মন থেকে চাই এই নিউজটা ভুয়া হোক। আমি চাই আমাদের ফেভ কাপল থেকে আমরা আরো অনেক কিছু শিখতে।’ লামিশা হায়াত আরশি লিখেছেন, ‘তাহসান- মিথিলার নাকি ডিভোর্স হয়ে গেছে? মানতে পারছি না…এমন কেন হলো?’ মেহরাজ হাসিব লিখেছেন, ‘তাহসান আর মিথিলার ডিভোর্স হইতাছে!!!!! আচ্ছা ঠিক আছে!’ তুহিন খান লেখেন, ‘এ কেমন বিচার। অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে ডিভোর্স হতে যাচ্ছে দেশের জনপ্রিয় তারকা জুটি তাহসান-মিথিলার।’ হাসান ওয়াহিদ লিখেছেন, ‘আমি একমাত্র তাহসান-মিথিলা আর সাকিব-শিশিরকেই সুখী ভাবতাম। তাহসান-মিথিলা আমার সে ধারণা উল্টে দিলো। এ কেমন বিচার।’ শাহ রিয়াজ লেখেন, ‘অবশেষে তাহসান-মিথিলা অধ্যায়ের সমাপ্তি ঘটলো।’ হাসিবুর রহমান লিখেছেন, ‘তাহসান মিথিলাকে কেন ডিভোর্স দিয়েছে? এখনো জানতে পারিনি? কেউ কি জানেন?’ যুঁথী জামান লিখেছেন, ‘হাজার হাজার রোমান্টিক কাপল তাহসান-মিথিলার জুটিকে আইডল মানতো। কিন্তু তাহসান-মিথিলা যদি তুর্য-কাননের জুটিকে আইডল মানতো তাহলে তাদের সংসার এভাবে ভেঙে যেত না।’ জান্নাতুল ফেরদৌস এরা লিখেছেন, ‘একটি সুন্দর সম্পর্ক। একটি সাজানো সংসার। কি অবলীলায় ভাঙতে পারে ওরা!!!’ প্রিন্স সুজান লিখেছেন, ‘তাহসান-মিথিলা আমার খুব পছন্দের একটি জুটি ছিল। কিন্তু আজকে একি শুনলাম।’

সংবাদটি পড়া হয়েছে ১০৩ বার

( বি: দ্র: প্রবাস নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত প্রবাস নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

x
সর্বশেষ