আজ ১৮ই ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ৬ই ফাল্গুন ১৪২৪, ৩রা জমাদিউস-সানি ১৪৩৯

আমিরাতের হাসপাতালে তিন মাস পড়ে আছে ‘বাংলাদেশির’ লাশ

নভেম্বর ২৮, ২০১৭

সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি হাসপাতালের হিমঘরে তিন মাস ধরে এক ব্যক্তির লাশ পড়ে আছে, সে ‘বাংলাদেশি’ বলে স্থানীয় পুলিশের ভাষ্য।

স্থানীয় পুলিশ বলছে, তার নাম মোহাম্মদ সৈয়দ ও পিতার নাম আবদুল জলিল। তবে এটি তার  সঠিক পরিচয় কিনা এ ব্যাপারে সংশয় রয়ে গেছে প্রবাসীদের মধ্যে।

তার লাশ বর্তমানে আল আইন শহরের জিমি হাসপাতালের হিমঘরে রাখা আছে। তার আনুমানিক বয়স ৫০।

এদিকে লাশের সঠিক নাম-ঠিকানা পাওয়া যায়নি বলে তা বাংলাদেশে পাঠানো যায়নি বলে জানায় আবুধাবি বাংলাদেশ দূতাবাস।

দূতাবাসের আইন কর্মকর্তা রেজাউল আলম   বলেন, “গত ৩০ অগাস্ট তিনি আরব আমিরাতের ও ওমানের সীমান্তবর্তী আল আইন শহর দিয়ে আমিরাতে আসেন। উদ্দেশ্য আমিরাতের আইনশৃঙ্খলা কর্তৃপক্ষের কাছে আত্মসমর্পন করে দেশে ফেরার একটা উপায় বের করা।

আবুধাবি বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে দেওয়া লাশের ছবি

আবুধাবি বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে দেওয়া লাশের ছবি

“সে অনুযায়ী গত ১ সেপ্টেম্বর তিনি আল আইন পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করেন। পুলিশ হেফাজতে ২ সেপ্টেম্বর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে আল আইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন ৩ সেপ্টেম্বর তিনি হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান।”প্রবাসী এক বাংলাদেশি জানান, ভাগ্য বদলের জন্য তিনি ওমানে আসেন। কিন্তু সে স্বপ্ন তার অধরাই থেকে গেছে। একসময় ওমানে তিনি অবৈধও হয়ে পড়েন। বৈধ ওয়ার্ক পারমিট না থাকায় নেই কাজ। আর এভাবেই হয়তো অনাহারে অর্ধাহারে দুর্বিসহ পরবাস কাটাতে কাটাতে একসময় হাঁপিয়ে ওঠেন তিনি।

লাশের পরিচয় কেউ জানলে এ ঠিকানায় জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে- জাহাঙ্গীর কবীর বাপপি, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ফোন: ০০৯৭১-৫৫-৭৬৮৮-৩০২

সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৩৩ বার

( বি: দ্র: প্রবাস নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত প্রবাস নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

x
সর্বশেষ